লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন ২০২৪

আপনারা যারা লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার পাশাপাশি বিজনেস ভিসা, ফ্যামেলি ভিসা, স্টুডেন্ট ভিসা এবং ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদন করতে চাচ্ছেন তারা নিজে নিজে অনলাইন আবেদন করতে পারবেন।

লিথুনিয়া বাল্টিক সাগরের উপকূলে সুইডেনের বিপরীতে অবস্থিত। দেশটি ইউরোপ মহাদেশে অবস্থিত এবং সেনজেন ভুক্ত দেশ। আপনারা যারা ইউরোপ যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন তারা খুব সহজে লিথুনিয়া যেতে পারবেন।

প্রত্যেক বছর সরকারি ভাবে লিথুনিয়া কাজের জন্য কর্মী নিয়োগ দেয়। এই নিয়োগ অনুযায়ী ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করলে কম খরচে বাংলাদেশ থেকে লিথুনিয়া যেতে পারবেন।

লিথুনিয়াতে অনেক ধরনের কাজ রয়েছে। আপনি নিজের পছন্দ অনুযায়ী কাজের ভিসা নিতে পারবেন। অনলাইনের মাধ্যমে লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করা যায়। নিচে আবেদন করার প্রক্রিয়া উল্লেখ করা হয়েছে।

লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ২০২৪

আপনারা যারা লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে যাচ্ছেন তারা ৪টি ক্যাটাগরিতে আবেদন করতে পারবেন। এই ক্যাটাগরি গুলো হলোঃ

  • ইন্ট্রা = কোম্পানি ভিসা
  • সিজনাল = কাজের ভিসা
  • সাধারণ কর্মীদের জন্য = ওয়ার্ক পারমিট ভিসা
  • অভিজ্ঞ কর্মীদের জন্য = EU Blue Card

লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন ২০২৪

আপনারা যারা বাংলাদেশ থেকে অনলাইনে নিজে নিজে লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করতে চান তারা visathing.com/lithuania এই লিংকে গিয়ে ভিসা সিলেক্ট করে আবেদন করতে পারবেন।

এখান থেকে আপনারা লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার পাশাপাশি স্টুডেন্ট ভিসা, বিজনেস ভিসা, ফ্যামেলি ভিসা এবং ট্যুরিস্ট ভিসার আবেদন করতে পারবেন।

লিথুনিয়া কোন কাজের চাহিদা বেশি

ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় লিথুনিয়া গেলে অনেক ধরনের কাজ করতে পারবেন। বর্তমানে লিথুনিয়ায় কাজের তুলনায় কর্মীর সংখ্যা অনেক কম। লিথুনিয়ার চাহিদা সম্পন্ন কয়েকটি কাজের নাম নিচে উল্লেখ করা হয়েছে।

  • ফ্যাক্টরি
  • ইলেকট্রনিক
  • রেস্টুরেন্টে
  • ড্রাইভার
  • কন্সট্রাকশন
  • ক্লিনার
  • ওয়েল্ডার

লিথুনিয়া যেতে কত টাকা লাগে

লিথুনিয়া যেতে কত টাকা লাগে সম্পন্ন নির্ভর করে আপনার ভিসা ক্যাটাগরির উপর। তবে, যেকোনো ভিসায় সরকারি ভাবে লিথুনিয়া যেতে অনেক কম খরচ হয়।

স্টুডেন্ট ভিসায় বাংলাদেশ থেকে লিথুনিয়া যেতে ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা লাগে। তবে এক্ষেত্রে লিথুনিয়া কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্কলারশিপ পেতে হবে। লিথুনিয়া কাজের ভিসা বা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় বাংলাদেশ থেকে লিথুনিয়া যেতে ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা খরচ হবে।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম লিথুনিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার নিয়ম সম্পর্কে। এই বিষয় কোনো প্রশ্ন জানার থাকলে নিচের কমেন্টে লিখে জানাবেন এবং লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন।

FAQ (প্রশ্ন উত্তর)

লিথুনিয়া ভিসা আবেদন ফরম

বাংলাদেশ থেকে লিথুনিয়া যেতে ভিসা আবেদন করার জন্য ভিজিট করুন এই visathing.com/lithuania লিংকে।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *