ব্যাংকিং সেবা

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস | খোলার নিয়ম, চার্ট, রেট, সুবিধা এবং স্কিম

বাংলাদেশের অন্যান্য সকল ব্যাংক গুলোর মতো সোনালী ব্যাংক ডিপিএস সুবিধা দিচ্ছে। আজকের এই আর্টিকেলে আমরা জানবো সোনালী ব্যাংক ডিপিএস খোলার নিয়ম, ডিপিএস চার্ট বা তালিকা, রেট, স্কিম এবং ডিপিএস এর সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ।

ডিপিএস (DPS) বা ডেপোজিট পেনশন স্কিম হল একটি দীর্ঘমেয়াদী সঞ্চয় প্রকল্প যা অন্যান্য ব্যাংকের মতো সোনালী ব্যাংক গ্রহকদের জন্য অফার করে। এই প্রকল্পে সোনালী ব্যাংকের গ্রহকরা নিয়মিত ব্যাংকে টাকা জমা করে এবং নিদিষ্ট মেয়াদ শেষে নিদিষ্ট পরিমাণ অর্থ পান।

অন্যান্য ব্যাংক গুলোর সেবার সাথে কোন দিক থেকে পিছিয়ে নেই সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। বর্তমানে বাংলাদেশের সুনামধন্য ব্যাংক হিসাবে প্রায় ২ কোটি ৪৭ লাখের বেশি মানুষকে সেবা দিয়ে আসছে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস খুলতে কি কি লাগে

  • সোনালী ব্যাংক ডিপিএস একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে।
  • আপনার বয়স অবশ্যই ১৮ বছরের বেশি হতে হবে।
  • আপনার বয়স যদি ১৮ বছরের কম হয় তাহলে পিতা-মাতা (অভিভাবক) স্বীকৃতি দিলে ডিপিএস একাউন্ট খুলতে পারবেন।
  • আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) বা জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রয়োজন হবে।
  • নমিনির জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) সনদ প্রয়োজন হবে।
  • আপনার এবং নমিনির ২ কপি করে পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবির প্রয়োজন হবে।
  • বিশেষ ক্ষেত্রে নাগরিক সনদের প্রয়োজন হতে পারে।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস একাউন্ট খোলার নিয়ম

সোনালী ব্যাংকে ডিপিএস একাউন্ট খোলার জন্য উপরে উল্লেখ করা প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো নিয়ে নিকটস্থ সোনালী ব্যাংকের যেকোনো একটি শাখায় যেতে হবে।

ব্যাংকের ম্যানেজারকে ডিপিএস একাউন্ট খোলার আগ্রহর কথা জানালে আপনাকে একটি ফর্ম প্রদান করবে। ব্যাংক কর্মকর্তা ডিপিএস সংক্রান্ত আপনার প্রয়োজনীয় সকল তথ্য ফরমে লিখে অনলাইনে সাবমিট করার মাধ্যমে ডিপিএস একাউন্ট খুলতে পারবেন।

আপনারা যারা সোনালী ব্যাংকে ডিপিএস একাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন তারা উপরে উল্লেখ করা প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো সাথে নিয়ে ব্যাংকে গিয়ে কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়াই খুব সহজে Sonali bank dps খুলতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস চার্ট

বর্তমানে সোনালী ব্যাংকে বিভিন্ন মেয়াদি ফিক্সড ডিপিএস একাউন্ট খুলতে পারবেন। মেয়াদের উপর ভিত্তি করে ডিপিএস স্কিমে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দেওয়া হয়। নিচে উল্লেখ করা চার্টে লক্ষ্য করলে প্রতিমাসে কত টাকা জমা করলে কি কি সুযোগ সুবিধা পাবেন জানতে পারবেন।

বছর | সুদের হার ১০.০০% | টাকা
  • ৩ বছর মাসিক কিস্তি ২৪,২৫০ টাকা
  • ৩ বছর প্রিন্সিপাল ৮,৭৩,০০০ টাকা
  • ৩ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ১,২৭,৪৩১ টাকা
  • ৩ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,৪৩১ টাকা
  • ৪ বছর মাসিক কিস্তি ১৭,৩৮০ টাকা
  • ৪ বছর প্রিন্সিপাল ৮,৩৪,২৪০ টাকা
  • ৪ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ১,৬৬,০২৮ টাকা
  • ৪ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,২৬৮ টাকা
  • ৫ বছর মাসিক কিস্তি ১৩,২৮০ টাকা
  • ৫ বছর প্রিন্সিপাল ৭,৯৬,৮০০ টাকা
  • ৫ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ২,০৩,৪১৮ টাকা
  • ৫ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,২১৮ টাকা
  • ৬ বছর মাসিক কিস্তি ১০,৫৭০ টাকা
  • ৬ বছর প্রিন্সিপাল ৭,৬১,০৪০ টাকা
  • ৬ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ২,৩৯,৭৪০ টাকা
  • ৬ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,৭৮০ টাকা
  • ৭ বছর মাসিক কিস্তি ৮,৬৪০ টাকা
  • ৭ বছর প্রিন্সিপাল ৭,২৫,৭৬০ টাকা
  • ৭ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ২,৭৪,৬৪৪ টাকা
  • ৭ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,৬৪৪ টাকা
  • ৮ বছর মাসিক কিস্তি ৭,২১০ টাকা
  • ৮ বছর প্রিন্সিপাল ৬,৯২,১৬০ টাকা
  • ৮ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ৩,০৮,৫৪০ টাকা
  • ৮ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,৭০০ টাকা
  • ৯ বছর মাসিক কিস্তি ৬,১০৫ টাকা
  • ৯ বছর প্রিন্সিপাল ৬,৫৯,৩৪০ টাকা
  • ৯ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ৩,৪১,০৮৫ টাকা
  • ৯ বছর মোট প্রাপ্য  ১০,০০,৪২৫ টাকা
  • ১০ বছর মাসিক কিস্তি ৫,২৩৫ টাকা
  • ১০ বছর প্রিন্সিপাল ৬,২৮,২০০ টাকা
  • ১০ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ৩,৭২,৭৪৮ টাকা
  • ১০ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০০,৯৪৮ টাকা
  • ১২ বছর মাসিক কিস্তি ৩,৯৫০ টাকা
  • ১২ বছর প্রিন্সিপাল ৫,৬৮,৮০০ টাকা
  • ১২ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ৪,৩২,৪১০ টাকা
  • ১২ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০১,২১০ টাকা
  • ১৫ বছর মাসিক কিস্তি ২,৭১০ টাকা
  • ১৫ বছর প্রিন্সিপাল ৪,৮৭,৮০০ টাকা
  • ১৫ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ৫,১৩,৫৬৪ টাকা
  • ১৫ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০১,৩৬৪ টাকা
  • ২০ বছর  মাসিক কিস্তি ১,৫৫৫ টাকা
  • ২০ বছর প্রিন্সিপাল ৩,৭৩,২০০ টাকা
  • ২০ বছর ব্যাং কর্তৃক প্রদত্ত সুদ ৬,২৭,৯৮৭ টাকা
  • ২০ বছর মোট প্রাপ্য ১০,০১,১৮৭ টাকা

বি:দ্রি: উপরে উল্লেখ করা বছর এবং টাকা পরিমান যেকোনো সময় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ পরিবর্তন করতে পারে। তাই ডিপিএস একাউন্ট খোলার আগে ডিপিএস চার্ট বা তালিকা সম্পর্কে জেনে নিবেন।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস স্কিম ২০২৪

বর্তমানে সোনালী ব্যাংকে বিভিন্ন ধরনের ডিপিএস একাউন্ট খুলতে পারবেন। এই ডিপিএস স্কিম গুলোর সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হল।

(১) শিক্ষা সঞ্চয় স্কিম

সোনালী ব্যাংক শিক্ষা সঞ্চয় স্কিমে চক্রবৃদ্বি হারে সুদের পরিমান ৬.৫০%। ডিপিএস একাউন্টের মেয়াদ সর্বোচ্চ ৫ বছর এবং মাসিক কিস্তির পরিমান ৫০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত।

(২) পল্লী সঞ্চয় স্কিম

সোনালী ব্যাংক পল্লী সঞ্চয় স্কিমে সরল সুদের পরিমান ৯.০০%। ডিপিএস একাউন্টের মেয়াদ সর্বোচ্চ ৭ বছর এবং মাসিক কিস্তির পরিমান ১০০, ২০০, ৩০০, ৪০০, ৫০০ এবং ১,০০০ টাকা পর্যন্ত।

(৩) সোনালী সঞ্চয় স্কিম

সোনালী সঞ্চয় স্কিমে চক্রবৃদ্বি হারে সুদের পরিমান ৬.৫০%। পিডিএস একাউন্টের মাসিক কিস্তি ৫০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত এবং একাউন্টের মেয়াদ সর্বোচ্চ ৫ বছর।

(৪) চিকিৎসা সঞ্চয় স্কিম

সোনালী ব্যাংক চিকিৎসা সঞ্চয় স্কিমের সুদের হার ৮%। ডিপিএস একাউন্টে মাসিক কিস্তির পরিমান ৫০০ টাকা থেকে ১০,০০০ টাকা এবং মেয়াদ সর্বোচ্চ ১০ বছর পর্যন্ত।

(৫) স্বাধীন সঞ্চয় স্কিম

সোনালী স্বাধীন সঞ্চয় স্কিমে সুদের হার ৩% বিদ্যমান। স্কিমের মেয়াদ ৫ বছর থেকে সর্বোচ্চ ১০ বছর পর্যন্ত এবং প্রাথমিক জমার পরিমান ১,০০০ টাকা।

(৬) বিবাহ সঞ্চয় স্কিম

সোনালী ব্যাংক বিবাহ সঞ্চয় স্কিমে চক্রবৃদ্বি হারে সুদের পরিমান ৮.৫০%। মাসিক কিস্তির পরিমান ১০০, ২০০, ৩০০, ৪০০, ৫০০, ১০০০ থেকে ২০০০, ৩০০০, ৪০০০, ৫০০০, ৬০০০, ৭০০০, ৮০০০, ৯০০০ এবং ১০০০০ টাকা পর্যন্ত। এই স্কিমের মেয়াদ ১০ বছর পর্যন্ত।

সোনালী ব্যাংক মিলিয়নিয়ার স্কিম ২০২৪

সোনালী ব্যাংকের অন্যান্য স্কিম হিসাবের তুলনায় মিলিয়নিয়ার স্কিম হিসার একটু ভিন্ন। নিচে থেকে সোনালী ব্যাংক মিলিয়নিয়ার স্কিমের মেয়াদ এবং চক্রবৃদ্বি সুদের হার জেনে আসি।

  • ৪ থেকে ৮ বছর মেয়াদি ডিপিএসে ৬% চক্রবৃদ্বি সুদের হার।
  • ৯ থেকে ১৪ বছর মেয়াদি ডিপিএসে ৬.৫০% চক্রবৃদ্বি সুদের হার।
  • ১৫ থেকে ২০ বছর মেয়াদি ডিপিএসে ৭% চক্রবৃদ্বি সুদের হার।

সোনালী ব্যাংক অবসর সঞ্চয় স্কিম

সোনালী ব্যাংক অবসর সঞ্চয় স্কিমে সুদের হার ১২%। যেকোনো পরিমান টাকা এখানে জমা দিতে পারবেন এবং স্কিমের মেয়াদ ৩ বছর থেকে সর্বোচ্চ ১৫ বছর পর্যন্ত।

অনিবাসী আমানত স্কিম

সোনালী ব্যাংক অনিবাসী আমানত স্কিমে সরল সুদের হার ৭%। এখানে মাসিক কিস্তির পরিমান ৫০০০, ৬০০০, ৭০০০, ৮০০০, ৯০০০, ১০০০০, ১১০০০, ১২০০০, ১৩০০০, ১৪০০০ এবং ১৫০০০ টাকা পর্যন্ত। স্কিমের মেয়াদকাল সর্বোচ্চ ৫ বছর পর্যন্ত।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস তালিকা ২০২৪

আপনি চাইলে সোনালী ব্যাংকে বিভিন্ন মেয়াদি যেমন ৩,৪,৫,৬,৭,৮,১০,১২,১৫ এবং ২০ বছর মেয়াদি ডিপিএস একাউন্ট খুলতে পারবেন। এরপর মাসিক নিদিষ্ট কিস্তি ব্যাংককে জমা দিতে হবে। নিদিষ্ট মেয়াদ শেষে সুদসহ আপনার আসল টাকা ফেরত পাবেন।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস ১৫ বছর

সোনালী ব্যাংকে ১৫ বছর মেয়াদি ডিপিএস একাউন্টে মাসিক কিস্তির পরিমান ২,১৯৫ টাকা। নিদিষ্ট মেয়াদ শেষে সঞ্চয় হবে ৩,৯৫,১০০ টাকা। ব্যাংক থেকে সুদ পাবেন ৬,০৬,৯১৯ টাকা। ১৫ বছর মেয়াদকাল শেষে সর্বমোট টাকা পাবেন ১০,০২,০১৯ টাকা।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস ১০ বছর

সোনালী ব্যাংক ১০ বছর মেয়াদি ডিপিএস একাউন্টে মাসিক কিস্তির পরিমান ৪,৫৮০ টাকা। নিদিষ্ট মেয়াদ শেষে ৫,৪৯,৬০০ টাকা পাবেন মোট সঞ্চয় এবং ব্যাংক থেকে সুদ পাবেন ৪,৫০,৫০৮ টাকা। সর্বমোট পাবেন ১০,০০,১০৮ টাকা।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস ৫ বছর

সোনালী ব্যাংকে ৫ বছর মেয়াদি ডিপিএস একাউন্টে মাসিক কিস্তির পরিমান ১২,৪৭৫ টাকা। নিদিষ্ট মেয়াদ শেষে সঞ্চয়ের পরিমান হবে ৭,৪৮,৫০০ টাকা এবং ব্যাংক থেকে সুদ পাবেন ২,৫১,৭৭২ টাকা। সর্বমোট পাবেন ১০,০০,২৭২ টাকা।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস ৩ বছর

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস ৩ বছর মেয়াদি মাসিক কিস্তির পরিমান ২৩,৪০০ টাকা। নিদিষ্ট মেয়াদ শেষে সঞ্চয় হবে ৮,৪২,৪০০ টাকা এবং ব্যাংক থেকে সুদ পাবেন ১,৫৯,৩২৯ টাকা। সর্বমোট পাবেনন১০,০১,৭২৯ টাকা।

সোনালী ব্যাংকে ডিপিএস অসুবিধা

সোনালী ব্যাংকে ডিপিএস এর সবচেয়ে বড় অসুবিধা হল কম মেয়াদি ডিপিএসে কিস্তির পরিমান অনেক বেশি। সাধারণ মানুষের মাসিক কিস্তির টাকা জমা দিতে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হয়।

সোনালী ব্যাংক ডিপিএস ভাঙ্গার উপায়

সোনালী ব্যাংকের ডিপিএস একাউন্ট ভাঙ্গার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো নিয়ে ব্যাংকে যাবেন। এরপর ম্যানেজারকে গিয়ে আপনার ডিপিএস ভাঙ্গার ব্যাপারে অবগত করবেন। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আপনার ডিপিএস ভাঙ্গতে সাহায্য করবে।

নিদিষ্ট মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে আপনি চাইলে ডিপিএস ভাঙ্গতে পারবেন কিন্তু সুদ থেকে বঞ্চিত হবে। এছাড়া ডিপিএস ভাঙ্গার বিপরীতে সার্ভিস চার্জ ২৫০ টাকা এবং সরকার নির্ধারিত ভ্যাট প্রদান করতে হবে।

নিদিষ্ট মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে ডিপিএস একাউন্ট ভাঙ্গলে ব্যাংক কর্তৃক প্রাপ্য সুদের হার নিচে উল্লেখ করা হল।

  • প্রথম ৬ মাস – জমাকৃত মূল টাকা ফেরত পাবেন।
  • ৬ মাস থেকে ৩ বছর  – ৬% হারে সরল সুদসহ মূল টাকা ফেরত পাবেন।
  • ৩ থেকে ৫ বছর – ৭.৫০% হারে সরল সুদসহ মূল টাকা ফেরত পাবেন।
  • ৫ থেকে ১০ বছর – ৮.৫০% হারে সরল সুদসহ মূল টাকা ফেরত পাবেন।
  • ১০ বছরের বেশি হলে – ৯% হারে সরল সুদসহ মূল টাকা ফেরত পাবেন।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম সোনালী ব্যাংক ডিপিএস খোলার নিয়ম, চার্ট, রেট, সুবিধা, স্কিম এবং ডিপিএস ভাঙ্গার উপায় সহ আরো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে। এই সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন জানার থাকলে নিচের কমেন্টে লিখে জানাবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button