মর্টগেজ লোন কোন ব্যাংক দেয়

আপনাদের মধ্যে অনেকেই জানতে চাচ্ছেন বন্ধকী ঋণ বা মর্টগেজ লোন কি, মর্টগেজ লোন কোন ব্যাংক দেয় এবং নিতে কি কি কাগজপত্র লাগে।

মর্টগেজ লোন সাধারণত কোনো সম্পত্তি কেনার জন্য নেওয়া হয়। এই লোন নেওয়ার সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো যে সম্পত্তির বিপরীতে লোন নিচ্ছেন সেটা বিক্রি করতে হচ্ছে না।

লোন পরিশোধের পর আবার আপনি সম্পত্তি ফেরত পাবেন। সম্পত্তি বন্ধক রেখে বিভিন্ন উদ্দেশ্যে আপনি এই মর্টগেজ লোন নিতে পারবেন। যেমন, বাড়ি নির্মাণ বা ক্রয় করার জন্য, ব্যবসার জন্য, বিদেশে উচ্চ শিক্ষার জন্য।

মর্টগেজ লোন কি

যখন কোনো ব্যাক্তি ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিকট স্থায়ী সম্পদ জামানত রেখে তার বিপরীতে লোন দেয তাকে বন্ধকী ঋণ বা মর্টগেজ লোন বলে। সাধারণত এই লোন দীর্ঘমেয়াদি সময়ের জন্য নেওয়া হয়।

মর্টগেজ লোনের মেয়াদকাল সাধারণত ৫ থেকে ২০ বছর বা তার বেশিও মেয়াদকাল হতে পারে। মর্টগেজ লোনের ক্ষেত্রে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিকট স্থায়ী সম্পদ জামানত হিসেবে রাখতে হয়।

এই লোন নেওয়ার জন্য বন্ধকী স্থায়ী সম্পত্তির মূল্যের বিপরীতে ৫০% থেকে ৭০% পর্যন্ত লোন পাওয়া যায়। কোন স্থায়ী সম্পত্তির মূল্য পূর্ব থেকে নির্ধারিত থাকে না। ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান সম্পত্তির মূল্য যাচাইবাছাই করে মূল্যের বিপরীতে লোন ইস্যু করে।

মর্টগেজ লোন কোন ব্যাংক দেয়

প্রায় সব ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে মর্টগেজ লোন বা বন্ধকী ঋণ নেওয়া যায়। মুলত কাজের জন্য এই লোন নেওয়া হয় এবং লোনের সিকিউরিটি হিসেবে স্থায়ী সম্পত্তি বন্ধক রাখতে হয়।

বর্তমানে অধিকাংশ ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান গুলো মর্টগেজ লোন দেয় স্থায়ী সম্পত্তি বন্ধক রেখে। এই ব্যাংক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো: সোনালী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, দি সিটি ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, এবি ব্যাংক, এনআরবিসি ব্যাংক ইত্যাদি।

মর্টগেজ লোন পেতে কি কি কাগজপত্র লাগে

ব্যবসায়ী, বাড়িওয়ালারা এবং সরকারি চাকরিজীবীরা খুব সহজে এই লোন নিতে পারবেন। বেসরকারি চাকরিজীবীরা মর্টগেজ লোন নিতে হলে চাকরির স্থায়িত্ব, মাসিক বেতন, অন্যান্য আয়, ঋণখেলাপি আছে কিনা যাচাই করে এই দেওয়া হবে।

মর্টগেজ লোন পেতে প্রাথমিক পর্যায়ে আবেদন করার সময় প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র জমা দিতে হবে। যেমন:

  • আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র
  • গত ১ বছরের ট্যাক্স ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • বিদ্যুৎ বিলের কপি
  • গত ১ বছরের ব্যাংক স্টেটমেন্ট
  • জামিনদারের কাগজপত্র 
  • বন্ধকযোগ্য সম্পদের দলিলপত্র
  • বেতনের সার্টিফিকেট
  • যন্ত্রপাতি হলে মালিকানা সাপেক্ষে প্রমাণপত্র

মর্টগেজ লোনের উপর সুদের হার কত

সাধারণত পার্সনাল লোনের তুলনায় মর্টগেজ লোনের সুদের হার কম থাকে। মর্টগেজ লোনের উপর সুদের হার ১২% থেকে ১৫% এর মধ্যে হয়ে থাকে। এজন্য বেশিরভাগ গ্রাহকই মর্টগেজ লোন নেওয়াকে প্রেফার করেন।

মর্টগেজ লোন দেবার পূর্বে ব্যাংক যা খতিয়ে দেখে

মর্টগেজ লোন বা বন্ধকী ঋণ দেবার পূর্বে ব্যাংক সাধারণত কিছু কাগজপত্র খতিয়ে দেখে। এই কাগজপত্র গুলো নিচে উল্লেখ করা হলো:

  • আবেদনকারীর মাসিক বেতন বা আয়
  • গত কয়েক বছরের প্রদত্ত ট্যাক্স রশিদ
  • বর্তমান পেশা
  • বর্তমান কর্মরত প্রতিষ্ঠান
  • বন্ধকী সম্পত্তির মূল্য
  • চলমান বা অপরিশোধিত কোনো লোন আছে কিনা

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম মর্টগেজ লোন বা বন্ধকী ঋণ কি, মর্টগেজ লোন কোন ব্যাংক দেয় এবং মর্টগেজ লোন নিতে কি কি কাগজপত্র লাগে সহ আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সম্পর্কে। এই বিষয় কোনো প্রশ্ন জানার থাকলে নিচের কমেন্টে লিখে জানাবেন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *