হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪

বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে প্রচুর মানুষ ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে হাঙ্গেরি যাচ্ছেন। যারা নতুন বাংলাদেশ থেকে হাঙ্গেরি যেতে যাচ্ছেন তাদের মধ্যে অনেকে জানতে চাচ্ছেন হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে অথবা হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা কত টাকা।

মধ্য ইউরোপের একটি রাষ্ট্র হাঙ্গেরি। হাঙ্গেরি সেনজেন ভুক্ত দেশ হওয়ার বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশ থেকে কাজের উদ্দেশ্য প্রচুর মানুষ হাঙ্গেরি যাচ্ছেন। মূলত হাঙ্গেরিতে মানুষ প্রবেশ করে সেখান থেকে ইউরোপের অন্যান্য দেশে প্রবেশ করার জন্য।

বর্তমানে হাঙ্গেরিতে প্রচুর কাজ পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশ থেকে সহজে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পাওয়া যাচ্ছে। আপনারা যারা হাঙ্গেরি যেতে যাচ্ছেন তারা হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে সহ অন্যান্য বিষয় ভালো করে জানতে আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪ | Hungary jete koto taka lage

আপনি যদি বৈর্ধ ভাবে বাংলাদেশ থেকে ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় হাঙ্গেরি যেতে চান তাহলে ১০ থেকে ১৩ লাখ টাকা খরচ হবে। এই খরচের মধ্যে আপনার পাসপোর্ট থেকে শুরু করে ভিসা প্রসেসিং সহ সকল খরচ এর মধ্যে।

ভারত থেকে হাঙ্গেরি যেতে বাংলাদেশের তুলনায় খরচ অনেক কম লাগে। ভারত থেকে হাঙ্গেরি যেতে ৭ থেকে ৯ লাখ টাকা লাগে। আপনারা যারা বাংলাদেশ, ভারত সহ অন্যান্য দেশ থেকে হাঙ্গেরি যেতে যাচ্ছেন তারা সব সময় চেষ্টা করবেন বৈধ ভাবে যাওয়ার জন্য।

আপনারা যারা পড়াশোনা করার জন্য হাঙ্গেরি যেতে যাচ্ছেন তাদের অবশ্যই হাঙ্গেরি কোনো ইউনিভার্সিটি থেকে স্কলারশিপ পেতে হবে। পড়াশোনার জন্য হাঙ্গেরি যেতে ৫ থেকে ৬ লক্ষ টাকা খরচ হবে।

হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা

হাঙ্গেরিতে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা বা কাজের ভিসায় যাওয়ার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। বর্তমানে বাংলাদেশীদের জন্য ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পাওয়া একটি কঠিন।

কারণ বাংলাদেশীরা হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে হাঙ্গেরি গিয়ে সেখান থেকে ইউরোপের অন্য দেশে চলে যাচ্ছে। আপনি যদি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় হাঙ্গেরিতে দীর্ঘদিন কাজ করতে চান তাহলে নিদিষ্ট কিছু মানদন্ড পূরণ করতে হবে। তাহলে সহজে হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেয়ে যাবেন।

আপনারা যারা হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় যেতে তারা বাংলাদেশের সরকারি অথবা বেসরকারি এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করুন। তবে সব সময় চেষ্টা করবেন সরকারি এজেন্সির মাধ্যমে ভিসা আবেদন করার জন্য।

হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট পেতে কত দিন লাগে

হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করার পর ওয়ার্ক পারমিট পেতে ৯০ দিন সময় লাগে। এই সময়ের মধ্যে আপনি ওয়ার্ক পারমিট হাতে পেয়ে যাবেন। পরবর্তী ২ মাসের মধ্যে আপনি হাঙ্গেরি চলে যেতে পারবেন।

হাঙ্গেরি ভিসা খরচ কত ২০২৪

এখান থেকে কয়েক বছর আগে হাঙ্গেরিতে মানুষ যেত না। কিন্ত হাঙ্গেরি সেনজেন ভুক্ত দেশ হওয়ার পরে প্রচুর মানুষ ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় হাঙ্গেরি যেতে যাচ্ছেন।

বর্তমানে ডলারের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে হাঙ্গেরি যাওয়ার খরচ বৃদ্ধি পেয়েছে। ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় হাঙ্গেরি যেতে ১০ থেকে ১৩ লাখ টাকা খরচ হবে। যদিও বর্তমানে খরচ বেশি কিন্তু আগের তুলনায় অনেক সহজে হাঙ্গেরি যেতে পারবেন।

হাঙ্গেরি ভিসা খরচ নিচে উল্লেখ করা হলো:

  • হাঙ্গেরি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা ১০ থেকে ১৩ লাখ টাকা বাংলাদেশ থেকে এবং ভারত থেকে ৭ থেকে ৯ লাখ টাকা।
  • হাঙ্গেরি স্টুডেন্ট ভিসা ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা।
  • হাঙ্গেরি টুরিস্ট ভিসা ৩ থেকে ৪ লাখ টাকা।

হাঙ্গেরি যেতে কি কি কাগজপত্র লাগে

  • বৈধ পাসপোর্ট।
  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
  • হাঙ্গেরি ভিসা আবেদন ফরম।
  • পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি রঙিন ছবি (সত্যায়িত)।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট।

হাঙ্গেরি বেতন কত

হাঙ্গেরিতে একজন কর্মীর সর্বনিন্ম বেতন ৭০০ থেকে ১০০০ ইউরো। যা বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৮০ হাজার থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত। হাঙ্গেরিতে কর্মীদের ঘন্টা চুক্তি বেতন দেওয়া হয়।

প্রত্যেক দিন একজন কর্মী ফুল টাইম ৮ ঘন্টা ডিউটি করতে পারবে। এছাড়া আপনি অভার টাইম ডিউটি করতে পারবেন। সপ্তাহে দুই দিন ছুটি থাকবে।

শেষ কথা

আজকে আমরা জানলাম হাঙ্গেরি যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪ অথবা হাঙ্গেরি ভিসা খরচ কত সহ হাঙ্গেরি আরো বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে। এই বিষয় কোনো প্রশ্ন জানার থাকলে নিচের কমেন্টে লিখে জানাবেন এবং লেখাটি ভালো লাগলে শেয়ার করবেন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *